-->

টোফেন সিরাপ এর কাজ কি

টোফেন সিরাপ এর কাজ কি

টোফেন সিরাপ যার মুল উপাদান কিটোটিফেন ফিউমারেট। এটি একটি বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের একটি ওষুধ। সাধারণ সিরাপ ১০০ মিলি বোতল হিসেবে পাওয়া যায়।


টোফেন সিরাপ সাধারণত হাঁপানি, শ্বাসকষ্ট, সর্দি কাশি ইত্যাদি রোগের ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়। অনেকেই টোফেন সিরাপ এর কাজ কি তা জানতে চান।


আজকের এই পোস্টে আমরা টোফেন সিরাপের কাজ কি? টোফেন সিরাপ কিসের ওষুধ, টোফেন সিরাপ খাওয়ার নিয়ম, বাজারে এই সিরাপের দাম কত, এবং টোফেন সিরাপ এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া ইত্যাদি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছি।

টোফেন সিরাপ এর কাজ কি

টোফেন সিরাপ এর মূল উপাদান হলো কিটোটিফেন ফিউমারেট যা মূলত হাঁপানি রোগের চিকিৎসা হিসেবে ব্যবহৃত হয়। তবে বর্তমানে বাচ্চাদের ঠান্ডা কাশি হাঁপানি ইত্যাদি রোগের চিকিৎসায় জনপ্রিয় একটি সিরাপ হচ্ছে টোফেন সিরাপ।


টোফেন সাধারণত কিছুর রাসায়নিক পদার্থ নিঃসরণ ব্লক করে যা শাসনালির আক্রমণ, হাঁপানি, কাশি ইত্যাদির কারণ হতে পারে।

টোফেন সিরাপ কিসের ঔষধ

টোফেন সিরাপ কিসের ঔষধ? - টোকেন সিরাপ সাধারণত বিভিন্ন ধরনের অসুখের ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়। যেসব অসুখের ক্ষেত্রে টোফেন সিরাপ ব্যবহার করা যাবে সেগুলো নিচে উল্লেখ করা হলো: 


  • হাঁপানি প্রতিরোধমূলক চিকিৎসা

  • বিভিন্ন এলার্জি জনিত রোগ যেমন রাইনাইটিস এবং কনজাকটিভিটিস

  • নিউরোফ্রাইব্রমা জনিত চুলকানি, স্পর্শ অসহীনসু উপসর্গ, ব্যাথা ইত্যাদিতে টোফেন ব্যবহৃত হয়। 

  • এছাড়াও বিভিন্ন ধরনের এলার্জিজনিত সমস্যা যেমন ঠান্ডা কাশি হে-ফিভার ইত্যাদিতে টোফেন সিরাপ ব্যবহৃত হয়।

টোফেন সিরাপ খাওয়ার নিয়ম

টোফেন সিরাপ সাধারণত পূর্ণবয়স্ক ব্যক্তি এবং তিন বছরের ঊর্ধের শিশুরা খেতে পারে। নিচে টোফেন সিরাপ খাওয়ার নিয়ম দেওয়া হলো।


  • তিন বছরের বেশি শিশুদের জন্য: ১ মিলিগ্রাম করে দিনে দুইবার খাবার পরে খেতে হবে। তবে যদি শিশুর বেশি ঘুম পায় তাহলে রাতের বেলা ১ মিলিগ্রাম করে খাওয়াতে হবে। তবে সব সময় ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে ওষুধ খাওয়া উচিত। 
  • প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তিদের জন্য: সাধারণভাবে ১ মিলিগ্রাম করে দিনে দুইবার খাওয়া যেতে পারে। তবে অতিরিক্ত বা বিশেষ কোনো সমস্যা থাকলে প্রতিদিন ২ মিলিগ্রাম করে সকালে ও রাতে অর্থাৎ দুইবার নেওয়া যেতে পারে।

টোফেন কি কাশির সিরাপ

টোফেন সিরাপ কি কাজে ব্যবহৃত হয় এতে কি কাশির সিরাপ কিনা তা আমরা জানিনা। পোষ্টের উপরে অংশে আমরা টোফেন সিরাপ এর বিস্তারিত আলোচনা করেছি।


টোফেন সিরাপ হচ্ছে মূলত বিভিন্ন এলার্জি এবং হাঁপানিজনিত সমস্যা সমাধানের কাজে ব্যবহৃত হয়। বিভিন্ন এলার্জির জনিত কারণে ঠান্ডা এবং কাশি হয়ে থাকলে টোফেন সিরাপ খাওয়া যেতে পারে। সুতরাং ওপেন সিরাপকে এক্ষেত্রে কাশির সিরাপও বলা যায়।

টোফেন সিরাপ দাম

টোফেন সিরাপ বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের একটি ঔষধ। এটি বাজারে ১০০ মিলিয়ে বোতল হিসেবে পাওয়া যায়। বিভিন্ন জায়গায় এর দাম ভিন্ন ভিন্ন হতে পারে।


  • কোম্পানির দেওয়া দাম অনুযায়ী বর্তমানে টোফেন সিরাপ ১০০ মিলি এর খুচরা মূল্য ৭৫ টাকা।

টোফেন সিরাপ এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

টোফেন সিরাপ বা কিটোটিফেন এর কিছু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া রয়েছে।


  • এই সিরাপ সেবন করলে ঘুমের ব্যাঘাত হতে পারে। অসময়ে গুম হতে পারে অথবা অতিরিক্ত ঘুম হতে পারে। 
  • এটি এলার্জি বিরোধী ঔষধ ও অ্যালকোহলের প্রতিক্রিয়া বাড়িয়ে তুলতে পারে। 
  • ডায়াবেটিসের ঔষধের সাথে টোফেন সিরাপ খেলে সাময়িকভাবে রক্তে প্লাটিলেটের স্বল্পতা দেখা দিতে পারে।
  • ওষুধ গ্রহণের শুরুর দিকে কিছুদিন মাথা ঘোরা ভাব হতে পারে। এবং গলায় শুষ্কতা অনুভব হতে পারে। 

শেষ কথা

আজকের এই পোস্টে আমরা টোফেন সিরাপ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। আশা করছি আপনারা আপনাদের কাঙ্খিত প্রশ্নগুলোর উত্তর পেয়ে গেছেন। ঔষধ খাওয়ার আগে অবশ্যই অভিজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিবেন।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url