-->

গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণ দেখে বুঝে নিন আপনি প্রেগন্যান্ট কিনা

গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণ

আসসালামু আলাইকুম প্রিয় বন্ধুরা, আজকে আমরা আলোচনা করতে চলেছি খুবই সেনসিটিভ একটি বিষয় নিয়ে। যা হচ্ছে গর্ভবতী হওয়ার প্রাথমিক লক্ষণসমূহ বা সহবাসের কত দিনের পর গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণ বোঝা যায়।


আপনি যদি গর্ভাবস্থার প্রাথমিক লক্ষণ বা সহবাসের কতদিন পর গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণ প্রকাশ পায় তা সম্পর্কে জানতে চান তাহলে অবশ্যই আমাদের এই পোস্টটি শেষ পর্যন্ত পড়বেন। এই পোস্টে আমরা এই সকল বিভিন্ন ধরনের বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছি।


গর্ভবর্তী হওয়ার প্রাথমিক লক্ষণসমূহ


গর্ভবতী হওয়ার প্রাথমিক কিছু লক্ষণ রয়েছে। যেগুলো সাধারণত 6 থেকে 15 দিনের মধ্যে প্রকাশ পায়। নিচে গর্ভবতী হওয়ার প্রাথমিক লক্ষণগুলো দেওয়া হলো:


  • বমি বমি ভাব এবং বমি হওয়া গর্ভবতী হওয়ার একটি প্রাথমিক লক্ষণ।
  • মাথা ঘোরা, মাথা ঝিমানো, মাথা ব্যাথা।
  • স্তনে ব্যাথা অনুভূত হওয়া গর্ভবতী হওয়ার একটি প্রাথমিক লক্ষণ।
  • ক্লান্তি ও দুর্বলতা, অবসাদগ্রস্ত এবং জর হওয়া ।
  • ঘন ঘন প্রস্রাব হওয়া।
  • পেটে হালকা ব্যথা অনুভূত হওয়া এবং কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দেখা দেওয়া।
  • মেজাজ এবং রুচির পরিবর্তন হওয়া।

উপরোক্ত লক্ষণ গুলো হচ্ছে গর্ভবতী হওয়ার প্রাথমিক কিছু লক্ষণ। যদি 6 থেকে 15 দিনের মধ্যে এই লক্ষণগুলো প্রকাশ পায় তাহলে বুঝতে হবে যে গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এবং প্রেগনেন্সি টেস্ট করানো যেতে পারে।


প্রথমবার গর্ভবতী হওয়ার নয় মাসের লক্ষণসমূহ


মূলত, গর্ভধারণের পর্যায়টি নয় মাস চলমান থাকে। বিভিন্ন মাসে ভিন্ন ভিন্ন কিছু লক্ষণ দেখা দেয়। এই বিষয়গুলো সম্পর্কে আমরা নিচে আলোচনা করেছি।


প্রথম মাসের লক্ষণসমূহ

  • স্তন্য ফুলে যাওয়া
  • অস্বস্তিবোধ হওয়া
  • বমি হওয়া
  • শরীরের ক্লান্তি দেখা দিতে পারে

দ্বিতীয় মাসের লক্ষণসমূহ

  • মেজাজ পরিবর্তন হওয়া
  • খাদ্যভাস
  • রুচির পরিবর্তন হওয়া।

তৃতীয় মাসের লক্ষণসমূহ

  • পেট বেড়ে যাওয়া
  • ওজন বেড়ে যাওয়া

অর্থাৎ তৃতীয় মাসে শারীরিক পরিবর্তন ঘটে।

চতুর্থ মাসের লক্ষণ

  • শিশুর নাড়াচাড়া অনুভব করা যায়।
পঞ্চম মাসের লক্ষণসমূহ
  • শিশুর নাড়াচাড়া আরো বেশি অনুভূত হয়
  • শরীরে আরো ক্লান্তি চলে আসে

ষষ্ঠ মাসের লক্ষণসমূহ

  • অনিয়মিত শ্বাস প্রশ্বাস
  • কিডনিতে হালকা ব্যাথা

সপ্তম মাসের লক্ষণসমূহ

  • সাধারণত শরীরের বিভিন্ন অংশে ব্যাথা শুরু হয়
  • প্রসব বেদনা শুরু হয়
  • শরীরের বিভিন্ন অংশ ফুলে ওঠে।

অষ্টম মাসের লক্ষণ

  • সাধারণত ব্যাথা গুলো আরো অনেক বৃদ্ধি পায়
নবম মাসের লক্ষণসমূহ

  • প্রসব বেদনা তীব্র হতে থাকে
  • যোনি থেকে তরল পদার্থ বের হয়

দ্বিতীয়বার গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণ

সাধারণত দ্বিতীয়বারও গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণগুলো একই রকম থাকে। তবে কিছু কিছু মহিলাদের ক্ষেত্রে প্রাথমিক কিছু লক্ষণ নাও দেখা দিতে পারে। প্রাথমিক লক্ষণ মাথা ঘোরানো বমি বমি ভাব অনেকের ক্ষেত্রে এগুলো দেখা দেয় না। তবে দ্বিতীয়বার মা হওয়ার সময় প্রথমবারের চেয়ে অনেক বেশি ক্লান্তি অনুভূত হয়।


গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণ কত দিন পর বোঝা যায়


গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণ সহবাসের 6 থেকে 15 দিনের মধ্যেই বোঝা যায়।


সহবাসের কতদিন পর গর্ভবতী হয়

যারা মা হতে চান তাদের জন্য গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণ প্রকাশ পাওয়া বা সহবাসের কতদিন পর গর্ভবতী হয় তা জানা অনেক আনন্দের। আমাদের অনেকের এই প্রশ্ন থাকে যে সহবাসের কতদিন পর গর্ভবতী হয়।

  • বিশেষজ্ঞদের মতে সহবাসের ৩ থেকে ৫ দিন পর গর্ভবতী হয়।

গর্ভবতী হওয়ার কতদিন পর বমি হয়

গর্ভবতী হওয়ার কতদিন পর বমি হয় তা অনেকে জানতে চান। বমি বমি ভাব বা বমি হওয়া হচ্ছে গর্ভবতী হওয়ার প্রাথমিক কিছু লক্ষণ।
  • সাধারণত গর্ভবতী হওয়ার এক প্রথম সপ্তাহ থেকে বমি বমি ভাব এবং মাথা ঘোরা শুরু হয়।
  • সহবাসের তিন থেকে পাঁচ দিনের মধ্যে গর্ভবতী হয় এবং এরপর থেকেই গর্ভবতী হওয়ার প্রাথমিক লক্ষণ বমি বমি ভাব এবং বমি হওয়া শুরু হয়।

প্রেগন্যান্ট হওয়ার কত দিন পর মাসিক বন্ধ হয়

অর্থাৎ প্রেগন্যান্ট হওয়ার পরপরই মাসিক বন্ধ হয়ে যায়। মাসিক বন্ধ হয়ে যাওয়া গর্ভবতী বা প্রেগন্যান্ট হওয়ার একটি লক্ষণ। আপনার সহবাসের পরে যদি সঠিক সময়ে মাসিক না হয় তাহলে বুঝে নিতে হবে আপনি প্রেগন্যান্ট। তবে সে ক্ষেত্রে প্রেগনেন্সি টেস্ট করে শিওর হয়ে নেওয়া ভালো।
  • সাধারণত প্রেগন্যান্ট হওয়ার ৫-৬ দিন পরই মাসিক বন্ধ হয়ে যায়।

শেষকথা

আজকেরে পোস্টে আমরা খুবই ভালো এবং অসাধারণ কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছি। কারণ মা হওয়া প্রতিটি মহিলার স্বপ্ন। এবং তারা তাদের গর্ভকালীন বিভিন্ন সমস্যা সমাধান করতে এই সকল বিষয়গুলো সম্পর্কে জানা জরুরী।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url